অনুসন্ধান    

Logo

 

দি লেপ্রসী মিশন ইন্টারন্যাশনাল-বাংলাদেশ এর তথ্য সমূহ

কুষ্ঠরোগ কি ?

কুষ্ঠ একটি স্বল্প সংক্রামক ও নিরাময় যোগ্য রোগ। মাইকোব্যাকটেরিয়াম লেপ্রি নামক জীবাণু দ্বারা এ রোগ হয়। শতকরা ৯৯ ভাগের ও বেশী লোকের দেহে কুষ্ঠরোগ প্রতিরোধ করার স্বাভাবিক ক্ষমতা রয়েছে। তবে যে কোন স্তরের লোক কুষ্ঠরোগে আক্রান্ত হতে পারে। পূথিবীরSign of leprosy  শতকরা ৯০ ভাগের ও বেশী কুষ্ঠরোগী উন্নয়নশীল দেশে দেখা যায়। সম্প্রতি প্রতি বছর বাংলাদেশে গড়ে ৩৫০০ জন নতুন কুষ্ঠরোগী সনাক্ত হয়ে আসছে।

কুষ্ঠরোগের প্রাথমিক লক্ষণ হলো সাধারণতঃ চামড়ার উপর হালকা ফ্যাকাসে অনুভুতিহীন দাগ। তাছাড়া হাত পায়ের অনুভূতিও কিছুটা লোপ পেতে পারে। এই অনুভূতিহীনতাই হলো যে কোন আঘাত পাওয়ার জন্য দায়ী, যা পরবর্তীতে অধীকাংশ চিকিৎসাবিহীন কুষ্ঠরোগের অঙ্গ
বিকৃতির করণ হয়ে দাঁড়ায়। বর্তমানে প্রতিটি উপজেলা স্বস্থ্যকেন্দ্র এবং বেসরকারী কুষ্ঠ ক্লিনিকে বিনামূল্যে আধুনিক সমন্বিত চিকিৎসা পাওয়া যায়। রোগের শ্রেণীভেদে কুষ্ঠরোগের চিকিৎসা ৬ মাস থেকে ১২ মাসের হতে পারে।

অতএব কার্যকর এবং আন্নত চিকিৎসা ব্যবস্খা থাকা সত্ত্বেও বাংলাদেশের কুষ্ঠরোগীরা এখনো কুসংষ্কারের কারণে মাজে মাজে সামাজিকভাবে অবহেলিত হচ্ছে। সমাজ থেকে এই কুসংষ্কার দূর করার জন্য দি লেপ্রসী মিশন জনগনের মাঝে স্বাস্খশিক্ষা প্রদান করে জনগনের সচেতনতা বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে স্বাস্থ শিক্ষা বিষয়ক উপকরণাদি সরবরাহ করে থাকে। এর ফলে জনগণ সচেতন হয়ে রোগের প্রাথমিক অবস্থায় চিকিৎসার জন্য এগিয়ে আসতে উৎসাহিত হচ্ছে।

বাংলাদেশের অনেক রোগী আছে যারা রোগের প্রথমিক পর্যায়ে চিকিৎসা নিয়েছে বলে কোন প্রকারের অঙ্গ বিকৃতি ছাড়াই সুস্খতা লাভ করেছে এবং বর্তমানে তারা সুস্থ্য স্বভাবিক জীবন যাপন করছে।

কুষ্ঠ রোগ সম্বন্ধে তথ্যঃ

  • কুষ্ঠ একটি দীর্ঘ স্থায়ী কিন্তু স্বল্প সংক্রামক রোগLeprosy Disability
  • মাইকোব্যাকটেরিয়াম লেপ্রি নামক জীবাণু দ্বারা কুষ্ঠরোগ হয়
  • আধুনিক চিকিৎসায় কুষ্ঠরোগ সম্পূর্ণ ভাল হয়
  • এই রোগ প্রধানতঃ মানুষের চামড়া, প্রান্তিক স্নায়ু (নার্ভ) নাকের ঝিলিকে আক্রান্ত করে ফলে, চামড়ায় অনুভূতিহীন দাগ ও মাংসপেশীর দুর্বলতা দেখা দেয়
  • যে কোন বয়সের পুরুষ, মহিলা, ছেলে, মেয়ে এবং ধনী গরীব যে কোন লোকেরই কুষ্ঠরোগ হতে পারে
  • সম্প্রতি প্রতি বছর বাংলাদেশে গড়ে ৩৫০০ জন নতুন কুষ্ঠরোগী সনাক্ত হয়ে আসছে।

কুষ্ঠ রোগের লক্ষ্যণ সমূহঃ

  • চামড়ায় হালকা ফ্যাকাসে বা লালচে দাগ, যা চুলকায় না ঘামে না, অনুভূতি থাকে না এবং কখনো কখনো দাগ থকে লোম ও ঝড়ে যায়
  • চামড়ার নীচে গুটি গুটি দেখা যায়
  • মুখমন্ডলের চামড়া পুরু এবং কানের লতি মোটা হয়ে যায়
  • প্রান্তিক স্নায়ু (নার্ভ) মোটা ও ব্যথাযুক্ত হয়

কুষ্ঠ রোগের চিকিৎসাঃMDT

  • রোগের শ্রণীভেদে ৬ মাস থেকে ১২ মাসের নিয়মিত চিকিৎসায় কুষ্ঠরোগ সম্পূর্ণ ভাল হয় দেশের সকল উপজেলা স্বস্থকেন্দ্রে, বক্ষ্মব্যাধি ও কুষ্ঠ বিষয়ে কাজ করে এমন এনজিও ক্লিনিকে বিনামূল্যে কুষ্ঠরোগের চিকিৎসা পাওয়া যায়
  • চিকিৎসা প্রাপ্ত রোগীরা সমাজে একজন সাধারণ মানুষের মত স্বভাবিক জীবন যাপন করতে পারে।

কুষ্ঠরোগের বিতলাঙ্গতাঃ

  • রোগের শুরুতে নিয়মিত চিকিৎসা না না নিলে নানা ধরণের বিকলাঙ্গতা দেখা দিতে পারে
  • অপারেশন ও ব্যায়ামের সাহায্যে অঙ্গ বিকৃতি সরানো বা রোধ করা যায়
  • রোগের শুরুতে চিকিৎসা নিলে অঙ্গ বিকৃতি রোধ করা যায়

তাই সময়মত চিকিৎসা গ্রহন করুন ও কুষ্ঠরোগের বিকলাঙ্গতা থেকে বাঁচুন


 

Contact 1:
জনাব মো: আজহারুল ইসলাম
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক)
ফোনঃ ০৫৫১-৬১৩৪৬
মোবাইল: ০১৭১৮-৬৩১২৪৩
islam15913azhar@gmail.com

Contact 2:
জনাব শাখী ছেপ
সহকারী কমিশনার,এনজিও শাখা
মোবাইল: ০১৮৪১৮৩৩২০৯

Contact 3:
জনাব মো: মশিউর রহমান অফিস সহকারী, এনজিও শাখা
মোবাইল: ০১৭৫১৩৬৫৬৮০

জনাব মো: রইসউদ্দিন
এনজিও সমন্বয়কারী, নীলফামারী।

প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর
জেলা ব্র্যাক প্রতিনিধি, নীলফামারী।
মোবাইল: ০১৭৩০৩৪৮৪২২

NGO সমূহ